পেয়ারার স্বাস্থ্য উপকারীতা

0

পেয়ারা আমাদের সকলের প্রিয় সুস্বাদু একটি ফল। স্বাদ আর পুষ্টিগুণে পেয়ারার তুলনা হয়না, পেয়ারাতে প্রচুর ভিটামিন সি থাকে, পেয়ারার পুষ্টিগুণ আমাদের অনেকেরই অজানা। ১০০ গ্রাম পেয়ারায় ২০০ মি.গ্রা. ভিটামনি সি আছে অর্থাৎ পেয়ারায় কমলার চেয়ে চার গুণ বেশি ভিটামিন সি থাকে। পেয়ার প্রায় সব মৌসুমেই পাওয়া যায়। অথচ এই পুষ্টিকর ফলটি যেমন আমাদের প্রতিদিনের খাবারের অংশ হতে পারে তেমনি আমাদের অনেক রোগ প্রতিরোধ করে থাকে । আজকে আলোচনা করবো পেয়ারার উপকারীতা, পুষ্টিগুন ও ঔষধিগুণ সমূহ।

১. ক্যান্সারের ঝুকি কমায়ঃ পেয়ারাতে প্রচুর পরিমান ভিটামিন সি এবং আরো কিছু পলিফেনল আছে যা কিনা শক্তিশালী এন্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে আর এই শক্তিশালী এন্টি অক্সিডেন্ট ক্যান্সার হওয়ার ঝুকি কমায়। নিয়মিত পেয়ারা খেলে মেয়েদের ব্রেস্ট-ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। এছাড়াও প্রোস্টেট ক্যান্সার কমাতে অনেক সাহায্য করে পেয়ারা।

২.ডায়াবেটিকস নিয়ন্ত্রন করেঃ পেয়ারাতে প্রচুর ফাইবার ও কম গ্লাইসেমিক-ইনডেক্স থাকার কারণে এটি খেলে রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে আর তাই ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুকি অনেকটা কম থাকে।

৩. হার্টকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করেঃ নিয়মিত পেয়ারা শরীরে সোডিয়াম এবং পটাশিয়াম এর ব্যালান্স বাড়ে যা কিনা ব্লাড-প্রেশার নিয়ন্ত্রণ । পেয়ারা এল ডি এল কোলেস্টেরল মাত্রা কমায় যার ফলে হার্টের অসুখ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কমে। একই সাথে এই পেয়ারা এইচ ডি এল নামক একটি কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ায় যা কিনা হার্টকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।
৪. কোষ্ঠ-কাঠিন্য দূর হয়: পেয়ারা একটি ফাইবার জাতীয় ফল আর তাই এটি খেলে কোষ্ঠ-কাঠিন্য দূর হয় আর তাই কারো ঠিকমত পায়খানা না হলে পেয়ারা খেয়েই করতে পারেন আপনার সমস্যার সমাধান।
৫. দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে: পেয়ারাতে ভিটামিন এ আছে আর যার কারণে এটি খেলে এটি আমাদের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায়তা করে, তাছাড়া এটি খেলে চোখের ছানি পড়ার ঝুকিটা অনেক কমে যায়।
৬. ব্রেণ ভালো থাকে: পেয়ারাতে পাওয়া যায় ভিটামিন বি-৩ এবং ভিটামিন বি-৬ যা কিনা ব্রেনের রক্ত-সঞ্চালনকে ভাল রাখতে সাহায়তা করে।
৭. মুখের ঘা এবং দূগর্ন্ধ কমায়: অনেকেরই মুখের ভেতর সাদা সাদা দাগের মত ঘা দেখা যায় আর এটি হয় ভিটামিন সি এর অভাবে, তাই পেয়ারা খেলে এটি হওয়া অনেকটা কমে যায়। এছাড়া মুখেরদূগর্ন্ধ কমাতে সাহায্য করে।
৮. দাঁতের ব্যথা কমায়: পেয়ারার পাতায় আছে এন্টি ইনফ্লামেটরি গুণ এবং খুব শক্তিশালি এন্টি-ব্যাক্টেরিয়াল ক্ষমতা আছে যা কিনা ইনফেকশনের সাথে যুদ্ধ করে এবং জীবানূ ধবংস করে। আর তাই পেয়ারার পাতা দাত ব্যথার জন্য খুব ভাল একটি ওষুধ

৯. বয়সের ছাপ কমায়: অনেকের দেখা যায় অল্প বয়সেই চেহারাতে বয়সের ছাপ পড়ে যায়। পেয়ারাতে এন্টি অক্সিডেন্ট ও ভিটামিন সি থাকে যা কিনা আমাদের ত্বকের পুনর্গঠনে ভুমিকা রাখে।
১০. রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: পেয়ারাতে গ্লুকোজের পরিমাণ কম থাকে আর তাই ওজন কমানোতে এটি বেশ ভাল একটি প্রতিষেধক, পেয়ারা ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরা’সের সাথে লড়াই করে শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
এছাড়াও পেয়ারাতে আছে প্রচুর ভিটামিন-সি এবং সাথে আয়রন যার কারণে এটি কফ দূরীকরণে অনেক সহায়তা করে। কারো যদি গলায় কফ জমে যায় তাহলে সেক্ষেত্র্রে পেয়ারা খুব ভাল ওষুধ।পেয়ারাতে আছে ফলিক এসিড আর ফলিক এসিড একজন গর্ভবতী মায়ের জন্য খুবই প্রয়োজন

Share:
Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *